বিনামূল্যে মৎস্য বিতরণ লকডাউন এলাকায় (ভিডিও)

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ১০ নাম্বার উত্তর কাট্টলি ওয়ার্ডে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে লকডাউন চলছে। লকডাউনের ১২ তম দিনে স্থানীয় কাউন্সিলরের উদ্যোগে নিন্মআয়ের মানুষের জন্য বিনামূল্যে মৎস্য বিতরণ কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে।

প্রতিদিন ১৬০ পরিবার করে লকডাউনের শেষ দিন পর্যন্ত বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় এ কর্মসূচি পালিত হবে বলে জানান স্থানীয় প্রতিনিধিরা।

স্থানীয় কাউন্সিলর নিছার উদ্দীন আহমেদ মঞ্জুর সহকারি রোকন চট্টগ্রাম সময়কে জানান, আজ রবিবার থেকে বিভিন্ন পাড়ায় পাড়ায় কাউন্সিলরের ব্যক্তিগত উদ্যোগে মৎস্য বিতরণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ভ্যানে করে ডোর টু ডোর এ কর্মসূচি লকডাউন এর শেষ দিন পর্যন্ত পালন করা হবে। প্রতিদিন ১৬০ পরিবারকে ১ কেজি করে মাছ দেয়া হবে।

আজ (সোমবার) মোস্তফা হাকিম কলেজ রোড়ে ১৬০ পরিবারকে বিতরণ করা হয়েছে। কাউন্সিলরের ভ্যান পাড়ার মোড়ে মোড়ে যাবে। যাদের প্রয়োজন, তারা এক কেজি করে মাছ নিয়ে যাবে। স্থানীয় জেলেরাই এ মাছ বিতরণের কাজ করবেন।

এ বিষয়ে বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) স্টেপের কর্ণধার শিপু বিশ্বাস বলেন, ‘বিষয়টি দুঃখজনক হলেও সত্য যে, লকডাউন বাস্তবায়নের ১২ দিনেও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে সরকারিভাবে টেকনিক্যাল সাপোর্ট করা হয়নি। ফলে কার্যকর লকডাউন বাস্তবায়ন করা জনপ্রতিনিধিদের পক্ষে কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আজ ২৯ -০৬-২০ ইং তারিখে চলছে মোস্তফা হাকিম কলেজ রোড়ে নিজ অর্থায়নে প্যানেল মেয়র ড.নিছার উদ্দিন আহমেদ মন্জু ভাইয়ের ধারাবাহিক বিনা মূল্যে মৎস্য সেবা,,,,,,

Posted by Harunur Rashid on Sunday, June 28, 2020

কাউন্সিলরের পক্ষ থেকে শুধুমাত্র সরকারি ত্রাণ হিসেবে চালের সহায়তা করা হচ্ছে। তবে এ সময়ে পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবারের কথা ভেবে স্থানীয় কাউন্সিলর নিছার উদ্দীন আহমেদ মঞ্জু নিন্মআয়ের মানুষের জন্য উপহারসরূপ মৎস্য বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে। নির্দেশনা অনুযায়ী এলাকাটি আরো ১০ দিন লকডাউন থাকবে।

এ দশদিনে প্রতিদিন ১৬০ পরিবার করে ১ হাজার ৬০০ পরিবারকে ১ কেজি করে মাছ দেয়া হবে। আশা করি, এতে স্থানীয় প্রান্তিক জনগণের কষ্ট কিছুটা হলেও লাঘব হবে।

 

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 97 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।