ফেসবুকে নোবেলকে ‘অশালীন’ আক্রমণ, স্ট্যাটাসটি মারজুক রাসেলের নয়

‘সারেগামাপা’ খ্যাত বাংলাদেশি গায়ক মাইনুল আহসান নোবেল সম্প্রতি নানা বিতর্কে জড়িয়েছেন। এরইমধ্যে একটি মেয়ের নামে খোলা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয়েছে বেশকিছু ছবি ও একটি অভিযোগ। সেই অভিযোগে বলা হয়েছে নোবেল প্রেমিকার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। আদতে এ ধরনের অভিযোগের কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। তবে এসবের মাঝে দেশীয় সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস। যেখানে নোবেলকে ‘অশালীন’ আক্রমণ করা হয়েছে।

দেখা গেছে, ‘মারজুক রাসেল’ নাম দিয়ে খোলা একটি ফেসবুক পেইজ থেকে ওই স্ট্যাটাসটি ১৩ শে আগস্ট পোস্ট করা হয়েছে। এরইমধ্যে স্ট্যাটাসটি ভাইরাল হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা ও তর্কযুদ্ধের সৃষ্টি হয়েছে। ২৬ হাজার লাইক হয়েছে ওই স্ট্যাটাস, শেয়ার ও মন্তব্য পড়েছে কয়েকহাজার। তবে পোস্টটি মারজুক রাসেলের নয় বলে তিনি জানিয়েছেন।

মারজুক রাসেল বলেন, ‘আমি কাউকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আক্রমণ করে লিখি না, যারা আমাকে অনুসরণ করেন তারা জানেন। এছাড়াও লেখার যে কোয়ালিটি, আমি পড়েছি- আমার লেখার ধরন আর সেই পোস্টের লেখা প্রচুর অসঙ্গতি রয়েছে।’

পোস্টে লেখা হয়েছে, ‘নোবেল এর মত এমন অনেক ছাগল এর আগেও বাংলাদেশে আত্মপ্রকাশ করেছিলো, আজ তাদের একটারও নাম নিশানা নেই। এটাও হারিয়ে যাবে কালের গর্ভে! কারন? মৌলিকতা আর নিজস্বতা; -যা ওদের মাঝে ছিল না, নোবেল এরও নেই। যশ, খ্যাতি আর পয়সার লোভ মানুষকে ধ্বংস করে। অ্যামেচার ভোকাল দিয়ে, অন্য শিল্পির কণ্ঠকে নকল করার চেষ্টা করে জনপ্রিয় গানগুলোকে ধর্ষণ করে এই নোবেল যাদের মনে স্থান করে নিয়েছে তাদের জন্য আমার করুনা হয়, তাদের রুচিবোধকে ঘৃণা হয়।’

মারজুক রাসেল বানানে সচেতন। এই পোস্টে প্রচুর কমন বানান ভুল রয়েছে। ‘মতো’ ‘কারণ’ ‘শিল্পী’ ‘করুণা’র মতো বানান ভুল করা হয়েছে। ভুল বানানে কোনো পোস্ট করেন না বলে জানান মারজুক রাসেলের একজন শুভাকাঙ্ক্ষী। আর এই লেখাটি খুবই পুওর- মন্তব্য করেন তিনি।

মারজুক রাসেল বলেন, ‘আমি নিজেও জানতাম না এতো লাইক সম্বলিত আমার নামে পেইজ রয়েছে। অনেকগুলো আইডিও রয়েছে। এগুলো নিয়ে মাথা ঘামাতাম না। এখন দেখি এগুলো ঠিক করতে হবে। আমার আইডি নিয়েই আমি থাকি, আর একটা পেইজ রয়েছে। যেটার কখনও পরিচর্যা করিনি। এগুলো খেয়াল করতে হবে মনে হচ্ছে।’

নোবেল প্রসঙ্গে মারজুক রাসেল বলেন, ‘ওর বিষয়ে তো আমার কোনো বক্তব্য নেই। আমি আর কী বলবো?’

সোশ্যাল মিডিয়ায় যাচাই করে দেখা গেছে, মারজুক রাসেলের নামে বেশকিছু আইডি ও পেইজ খোলা হয়েছে। যেগুলোসবগুলোই ভুয়া। ভক্তদের এসব থেকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন এই কবি, গীতিকার ও অভিনেতা।

এদিকে মারজুক রাসেলের ২০০৪ সালে লেখা আইয়ুব বাচ্চুর গাওয়া একটি অপ্রকাশিত গান প্রকাশ হয়েছে সম্প্রতি। ওই বছর‘ফিসফাসফিস’ নামজের অ্যালবাম আয়োজন করেছিলেন কবি, গীতিকার ও অভিনেতা মারজুক রাসেল। অ্যালবামের সব গানের কথা লিখেছিলেন তিনি। অ্যালবামের শিল্পীরা ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু, আসিফ আকবর ও পান্থ কানাই। ১২টি গান দিয়ে সাজানো হয় অ্যালবাম। কিন্তু ‘ভাবসসূত্র’ শীর্ষক আইয়ুব বাচ্চুর গাওয়া গানটি টেকনিক্যাল কারণে প্রকাশ হয়নি তখন। ১৪ বছর পর এ গানটি প্রকাশ হলো ১৬ আগস্ট শিল্পীর জন্মদিনে।

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 84 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *