দেশ জ্বলছে, তাই উৎসব করেননি শ্রীলেখা

ইন্ডাস্ট্রির অন্য সবার মত এবার দোল উৎসবে মাতেননি শ্রীলেখা মিত্র। পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা বাংলাদেশেও বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু তিনি কেনো এবার উৎসবে মাতেননি?

টালিউডের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী তা নিয়ে নিজেই লিখেছেন। চলুন তাহলে আনন্দবাজারে প্রকাশিত তার লেখা পড়ি:

“এমন এক উৎসব হোলি, যে উৎসব কোনও রং মানে না। দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপট যখন জ্বলছে ধর্মীয় বিবাদে, তখন এই উৎসব যে কতটা ‘রঙিন’ হল সে বিষয়ে আপনার মতো আমিও খানিক সন্দিহান।

আরো পড়ুন: কলকাতার তারকাদের দোল উৎসব

হোলি তো নেহাতই ধর্মীয় উৎসব নয়, এতো মিলনের উৎসব। সম্প্রীতির উৎসব। যা কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের পড়ে না। এই উৎসব তো ন্যায়ের জয় অন্যায়ের উপর। হিন্দু-মুসলমান ভেদাভেদের ঊর্ধ্বে এই উৎসব। সম্ভবত যীশু খ্রিষ্টের জন্মেরও আগে থেকে এই উৎসব আমাদের দেশে প্রচলিত —এ রকম তথ্য পাওয়া যায়।

যাই হোক, তথ্য নিয়ে তত্ত্বকথা লেখার উদ্দেশ্য শ্রীলেখার নয়। তদুপরি জ্ঞান দেওয়ারও ইচ্ছে আমার নেই। তবু মনে হয় চলুন না একবার ফিরে যাই ছোটবেলার দিনগুলোতে। যখন পাড়ার সোমা, রাজু, সুবীর, মিমিদের সঙ্গে পিচকিরিতে রঙিন জল গুলে অপেক্ষা করতাম বাড়ির ছাদে বা রাস্তার কোনও গলিতে যে, কখন পরিষ্কার জামা-কাপড় পরা কারোকে দেখে একদম পারফেক্ট এইম করে পিচকিরির জল বা বেলুনটা ছুড়ে মারতে পারব। ঠিক ‘মারব’ না এ ক্ষেত্রে, যাকে রাঙিয়ে দেব আমার রঙে সে জুলিয়া নাকি জুবেদা, জোসেফ নাকি জসপ্রীত, সেটা নেহাতই গৌণ, আনন্দটাই মুখ্য। উৎসবটাই যেখানে উদ্দেশ্য, ধর্ম বিধেয়, সেখানে ধর্ম বিধেয় হয়েই থাকুক না আমার আপনার আমাদের সেকুলার ভারতবর্ষে।”

সূত্র: আনন্দবাজার

চস/সোহাগ

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 113 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।

One thought on “দেশ জ্বলছে, তাই উৎসব করেননি শ্রীলেখা

Comments are closed.