ছক্কা হাঁকিয়ে টেস্টে রোহিতের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি!

এমনটা করতে সত্যিকার অর্থেই সাহস লাগে!

রোহিত শর্মা সেই সাহসটাই দেখালেন। ওয়ানডেতে তার ডাবল সেঞ্চুরি আছে তিনটি। কিন্তু টেস্টে কোন ডাবল সেঞ্চুরি ছিল না। সেই অভাবও পুরো করলেন রাঁচি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। তাও আবার দারুণ কায়দায়, একেবারে ছক্কা হাঁকিয়ে ডাবল সেঞ্চুরির আনন্দে ব্যাট তুললেন। টেস্টে নিজের প্রথম এই ডাবল সেঞ্চুরির দিনে আরও অনেক রেকর্ডের মালিক হলেন ভারতের এই ওপেনার। পুরো সিরিজে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন রোহিত।

১৯৯ রানে দাড়িয়ে থাকা কোন ব্যাটসম্যান সাধারণত সিঙ্গেল রান নিয়েই তার জীবনের প্রথম ডাবল টেস্ট সেঞ্চুরি পুরো করাকেই বেশি নিরাপদ মনে করবে। কিন্তু রোহিত শর্মার স্নায়ু ইস্পাত দৃঢ়। দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার লুঙ্গি এনগিডির একটু শর্ট পিচে পড়া বলটা কোমর মুচড়ে পুল শট খেললেন। বল স্কয়ার লেগের ওপর দিয়ে বাউন্ডারির বাইরে আছড়ে পড়ল, ছক্কা! গ্যালারির দর্শকরা আনন্দে ফেটে পড়ে রোহিত শর্মাকে অভিনন্দন জানাল।

২৪৯ বলে নিজের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানোর পর রোহিত ফিরেন ঠিক পরের ওভারেই। কাগিসো রাবাদার বলে রোহিত শর্মা ফিরলেন ২৫৫ বলে ২১২ রান করে। ২৮ বাউন্ডারি ও ৬ ছক্কায় সাজানো ছিল রোহিতের এই প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ৫০০’র বেশি রান করা প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যান এখন রোহিত শর্মা। তার আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এক সিরিজে সর্বোচ্চ ৩৮৮ রান তোলার কৃতিত্ব ছিল ভারতের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের। ১৯৯৬/৯৭ সালে আজহার এই রান করেছিলেন।

এক টেস্ট সিরিজে দুটো দেড়শ রানের বেশি ইনিংস খেলা প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যানও এখন রোহিত শর্মা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানো চতুর্থ ভারতীয় তিনি। টসে জিতে রাঁচিতে ব্যাটিং বেছে নেয়া ভারতের প্রথমদিনের শুরুটা ভাল কিছু হয়নি। ৩৯ রানে শুরুর তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে ভারত। চতুর্থ উইকেট জুটিতে অজিঙ্কা রাহানোকে নিয়ে রোহিত রেকর্ড ২৬৭ রান যোগ করেন।

রাঁচি টেস্টের দ্বিতীয়দিনের দ্বিতীয় সেশনের খেলার সময় ভারত ৯৩ ওভারে ৫ উইকেটে তুলেছিল ৩৮৩ রান।

তিন টেস্টের সিরিজে ভারত এগিয়ে আছে ২-০ ব্যবধানে।

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 75 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *