৭৯ বছরের দীর্ঘ দাম্পত্যের রেকর্ড!

জুলিও সিজার মোরা এবং ওয়ালড্রামিনা ম্যাক্লোভিয়া কুইন্টেরোসের বিয়ে হয় ১৯৪১ সালে। এরপর একে একে কেটে গেছে ৭৯ বছর। এখনও এই দম্পতি সুখে ঘরকন্না করছেন। সম্প্রতি মোরা-কুইন্টেরোসে বিশ্বের বিবাহিত ও জীবিত দম্পতিদের মধ্যে দীর্ঘ দাম্পত্যের রেকর্ড গড়ে ‘গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে’ জায়গা করে নিয়েছেন।খবর সিএনএনের

ইকুয়েডরের রাজধানী কিটোতে বসবাসকারী মোরার বর্তমান বয়স ১১০ বছর। অন্যদিকে আগামী অক্টোবরে তার স্ত্রী কুইন্টেরোসের বয়স হবে ১০৫ বছর।

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের সূত্র অনুযায়ী, বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো এই দম্পতির প্রথম দেখা হয়েছিল স্কুল ছুটি চলাকালীন এক বছরে। কুইন্টেরোসের বোনের সঙ্গে মোরার চাচাতো ভাইয়ের বিয়ে হওয়ায় পারিবারিকভাবে তাদের পরিচয় হয়। এরপর তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। সাত বছরের বন্ধুত্বের পর ১৯৪১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি তারা বিয়ে করেন।তবে ওই সময় মোরা-কুইন্টেরোসে তাদের বিয়েটা গোপন রাখেন। কারণ দুই পরিবারে কেউই তাদের বিয়েতে রাজি ছিলেন না।

বিবাহিত জীবনে মোরা-কুইন্টেরোসে ৫ জন সন্তান রয়েছে। তারা সবাই যার যার জীবনে প্রতিষ্ঠিত। বর্তমানে এই দম্পতির ১১ জন নাতি-নাতনি, ২১ জন প্রপৌত্র ও ৯ প্রপৌত্রের সন্তান নিয়ে বিশাল এক পরিবার রয়েছে। সূত্র অনুসারে, ওই দম্পতির সবচেয়ে বড় ছেলে মারা যান ৫৮ বছর বয়সে। অবসর নেওয়া পর্যন্ত ওই দম্পতি শিক্ষকতা করেছেন।

মোরা-কুইন্টেরোসে দম্পতির এক মেয়ে অরা সিসিলিয়া জানান, তাদের বাবা-মা সিনেমা, থিয়েটারে এক সাথে যেতে, বাগান করতে এবং পরিবার ও বন্ধুদের সাথে একসঙ্গে খাবার খেতে পছন্দ করেন। তবে মহামারির কারণে তারা অনেকদিন একসঙ্গে বসতে পারেননি। এ কারণে বাবা-মা পরিবার ও প্রিয়জনের সাথে আবার মিলিত হওয়ার অধীর আগ্রহে অপেক্ষ করছেন।

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 38 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।