কাশ্মীরে ৫ অনুপ্রবেশকারীকে হত্যার দাবি ভারতের

জম্মু ও কাশ্মীরের কেরান সেক্টরে পাঁচ পাকিস্তানি অনুপ্রবেশকারীকে হত্যার দাবি করেছে ভারতের সেনাবাহিনী।
চলতি সপ্তাহে পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিমের (বিএটি) ওই পাঁচ অনুপ্রবেশকারীকে গুলি করে হত্যা করা হয় বলে রোববার জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি।
তারা ভারতে প্রবেশ করে কেরান সেক্টরের অগ্রবর্তী চৌকিতে হামলার চেষ্টা করছিল, কিন্তু অনুপ্রবেশের চেষ্টাকালেই তাদের হত্যা করা হয় বলে শনিবার রাতে জানিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। নিহতদের লাশ নিয়ে যাওয়ার জন্য পাকিস্তানকে বলেছে তারা।

কয়েকটি সূত্র এনডিটিভিকে জানিয়েছে, দাফন করতে লাশ নিয়ে যাওয়ার জন্য সাদা পতাকা হাতে এসে নিহতদের লাশ নিয়ে যাওয়ার জন্য পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে প্রস্তাব দিয়েছে ভারতীয় বাহিনী। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পাকিস্তানের পক্ষ থেকে কোনো জবাব আসেনি।

কেরান সেক্টরের সীমান্তে দুপক্ষের মধ্যে ভারি গোলাগুলি চলছে বলে সূত্রগুলো জানিয়েছে।

গণমাধ্যমের কাছে পাঠানো ছবিতে কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখার ভারতীয় পাশে নিহত অনুপ্রবেশকারীদের লাশ পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

গত দুই দিনের মধ্যে এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। নজিরবিহীন এক সরকারি সতর্কবার্তায় কাশ্মীর উপত্যকায় অবস্থানকারী পুণ্যার্থী ও পর্যটকদের তাৎক্ষণিকভাবে অঞ্চলটি ছাড়ার পরামর্শ দেওয়ার পর উচ্চ সতর্কাবস্থার মধ্যেই এ ঘটনাটি ঘটেছে।

এর পাশাপাশি রাজ্যজুড়ে চালানো নিরাপত্তা অভিযানে জইশ-ই-মোহাম্মদের চার সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

তাদের কাছ থেকে একটি স্নাইপার রাইফেল, আইডি ও পাকিস্তানি অর্ডিন্যান্স মার্কিং দেওয়া একটি মাইন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী।

শুক্রবার ভারত সরকার অমরনাথ যাত্রার পুণ্যার্থী ও পর্যটকদের তাৎক্ষণিকভাবে রাজ্যটি ছাড়ার পরামর্শ দেওয়ার পর শুক্রবার থেকে সেখানে সতর্কাবস্থা জারি করা হয়।

শনিবার দিনজুড়ে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর অবস্থান নেওয়া পাকিস্তানি বাহিনীর সঙ্গে ভারতীয় বাহিনীর গোলাগুলি অব্যাহত ছিল।

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 75 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *