মধ্যযুগীয় কায়দায় কিশোরকে নির্যাতন

259

এক কিশোরকে বার বার মাটিতে ফেলে মারছেন আশরাফ আলী লালসহ আরো দুই তিনজন। পা দিয়ে মুখ ও গলা চেপে ধরছেন। নিজেকে রক্ষার জন্য বার বার এই কিশোর ওই ব্যবসায়ীর পা চেপে ধরছেন। কিন্তু তাকে বাঁচানোর জন্য কেউ এগিয়ে আসেননি।

এমনই এক অমানবিক নির্যাতনের ভিডিও সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর সবার চোখ পড়ে লালমনিরহাটের দিকে। কারণ ঘটনাটি ঘটে এ জেলা শহরের মিশন রোডে আশরাফ আলী লালের মালিকানাধীন সীমান্ত শপিং কমপ্লেক্সের নিচ তলায় মঙ্গলবার সকালের দিকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আশরাফ আলী লাল লালমনিরহাটের পরিচিত মুখ। আদিতমারী উপজেলার কুমড়িরহাট এলাকার বাসিন্দা। তিনি পেশায় ব্যবসায়ী। এছাড়া তিনি জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক। এ ঘটনার খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতেই তাকে আটক করে পুলিশ।

এর আগে দুই মিনিট ৪৩ সেকেন্ডের ভিডিও সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় মঙ্গলবার রাত দশটার দিকে। পরে তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সকালের দিকে ওই কিশোর আটক করে কয়েকজন। তার বিরুদ্ধে অটোরিকশা থেকে তেলের একটি জারিকেন চুরির অভিযোগ তোলা হয়। পরে তাকে আশরাফ আলীর হাতে তুলে দেয়া হয়। তিনিসহ কয়েকজন মধ্যযুগীয় কায়দায় কিশোরটিকে নির্যাতন শুরু করেন।

লালমনিরহাট সদর থানার ওসি মাহফুজ আলম জানান, ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টায় আশরাফ আলী লালকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। নির্যাতনের শিকার কিশোরকেও খোঁজা হচ্ছে। তবে ওর বাড়ি সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউপির চাঁদনী বাজার এলাকায় বলে জানা গেছে।

চস/আজহার