ভারতকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জিতল অস্ট্রেলিয়া

161
ভারত
নিজেদের ঘরের মাঠে ভারতীয় নারী ক্রিকেট দলকে পাত্তাই দিল না অস্ট্রেলিয়া। ভারতের নারী দলের বিপক্ষে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করে ৮৫ রানের বড় ব্যবধানে জিতে নিয়েছে নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ।

নারীদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসে সাত আসরের মধ্যে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হলো অস্ট্রেলিয়া। বাকি দুইবার শিরোপা গেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরে।

একপেশে ফাইনাল ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে স্রেফ উড়ে গিয়েছে ভারতীয় নারী ক্রিকেট দল। আগে ব্যাট করে ১৮৪ রানের পাহাড়সম সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল স্বাগতিকরা। জবাবে ভারতীয়রা অলআউট হয়েছে মাত্র ৯৯ রানে।

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ভারত। আসরের অন্যতম মারকুটে ব্যাটার শেফালি ভার্মা সাজঘরে ফেরেন ইনিংসের তৃতীয় বলে, মাত্র ২ রান করে। ভারতের পতনের শুরুটাও ঠিক সেখান থেকেই।

আরও পড়ুন:-    স্বামীকে হতাশ করেননি হিলি

দ্বিতীয় ওভারে জোড়া ধাক্কা খায় ভারত। প্রথমে মাথায় বল লেগে আহত অবসর হয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন তানিনা ভাটিয়া। তিনি আর মাঠে নামতে পারেননি। সেই একই ওভারে রানের খাতা খোলার আগে আউট হয়ে যান দলের অন্যতম সেরা ব্যাটার জেমিমাহ রদ্রিগেজ।

কিছুই করতে পারেননি আরেক ওপেনার স্মৃতি মান্ধানা কিংবা অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌর। পাল্টা আক্রমণ করতে গিয়ে ৮ বলে ১১ রান করে ফেরেন মান্ধানা, হারমানের ব্যাট থেকে আসে ৭ বলে ৪ রান। প্রথম ছয় ওভারের মধ্যেই ৪ উইকেট এবং তানিয়াকে হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় ভারত।

সেখান থেকে তাদেরকে একশর কাছাকাছি নিয়ে যান দিপ্তি শর্মা, ভেদা কৃষ্ণামূর্তি এবং রিচা ঘোষ। অলরাউন্ডার দিপ্তির ব্যাট থেকে আসে ৩৩ রান। এছাড়া ভেদা ১৯ ও রিচা করেন ১৮ রান। তানিয়ার কনকাশন সাব হিসেবে নেমেছিলেন রাজেশ্বরী গাইকোয়ার। তিনি বিশেষ কিছু করতে সক্ষম হননি।

শেষপর্যন্ত ১৯.১ ওভারে ৯৯ রানে অলআউট হয়েছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে বল হাতে একাই ৪ উইকেট নিয়েছেন মেগান স্কট।এছাড়া জেস জোনাসেন শিকার করেছেন ৩টি উইকেট।

এর আগে নিজেদের পরিচিত মাঠে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ডানহাতি এলিস হিলি ও বাঁহাতি বিথ মুনি উদ্বোধনী জুটিতেই ভারতকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দেন। মজার বিষয় হলো- হিলি ও মুনি দুজনই উইকেটরক্ষক ব্যাটার। তবে সাধারণত হিলিই দাঁড়ান উইকেটের পেছনে।

এ দুই ডানহাতি-বাঁহাতির আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে মাত্র ১১.৪ ওভারেই ১১৫ রানের উদ্বোধনী জুটি পায় অস্ট্রেলিয়া। মনে হচ্ছিলো, প্রথমবারের মতো ফাইনাল ম্যাচে সেঞ্চুরি তুলে নেবেন হিলি। কিন্তু দ্বাদশ ওভারে তিনি আউট হয়ে যান ৭৫ রান, তাও মাত্র ৩৯ বল খেলে।

বিধ্বংসী এই ইনিংসে ৭টি চারের সঙ্গে ৫টি বিশাল ছক্কা হাঁকিয়েছেন হিলি। এ উইকেটরক্ষক ব্যাটারের আরেকটি পরিচয় হলো তিনি অস্ট্রেলিয়া পুরুষ ক্রিকেট দলের গতিতারকা মিচেল স্টার্কের স্ত্রী। আজ গ্যালারিতে বসেই নিজের স্ত্রীর বিধ্বংসী রূপ দেখেছেন স্টার্ক।

হিলির উপস্থিতিতে রয়েসয়েই খেলছিলেন মুনি। তবে প্রথম উইকেট পতনের পর বেরিয়ে আসেন খোলস থেকে। ভারতীয় বোলারদের উইকেটের চারপাশে খেলে তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। শেষপর্যন্ত তিনি অপরাজিত থাকেন ৫৪ বলে ৭৮ রানের ইনিংস খেলে। চলতি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও তিনি।

মূলত দুই ওপেনারের সত্তোরোর্ধ্ব দুই ইনিংসে ভর করেই ১৮৪ রানের বিশাল সংগ্রহ পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া অধিনায়ক ম্যাগ ল্যানিং করেছেন ১৬ বলে ১৬ রান। বাকি তিন ব্যাটসম্যানের কেউই দুই অঙ্কে যেতে পারেননি।

চস/আজহার