‘করোনা ঝুঁকি মাথায় নিয়ে শ্রীলঙ্কা সফরের প্রশ্নই আসে না।’

86
বাংলাদেশ ক্রিকেট

শ্রীলঙ্কায় করোনাভাইরাস পরিস্থিতি তুলনামূলক ভাল। করোনার তীব্রতা ভারত ও বাংলাদেশের তুলনায় কম। করোনা আক্রান্তের সংখ্যা খুব বেশি নয়, আর মারাও গেছেন কম। তাই লঙ্কান বোর্ড ভারত ও বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ আয়োজনে অতি উৎসাহী।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের স্বাগতিক হতে রীতিমত উন্মুখ হয়ে আছে লঙ্কান বোর্ড। এতে অবশ্য মিলেছে নতুন খবর। বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়া দেখে প্রথমবার চিন্তিত শ্রীলঙ্কা। তারা ভাবতে শুরু করেছে বাংলাদেশ নাও আসতে পারে।

বাংলাদেশ তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে না গেলে নিজেদের সম্ভাব্য করণীয়ও স্থির করে ফেলেছে লঙ্কান বোর্ড। ঐ সময়ে নিজেরা ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট এসএলপিএল আয়োজন করার ইচ্ছে প্রকাশ করেছে। লঙ্কান বোর্ডের এ বিকল্প চিন্তার খবর এরই মধ্যে সংবাদমাধ্যমে এসেছে।

তবে লঙ্কান বোর্ড থেকে এমন কথা বলা হয়নি যে, বাংলাদেশ জানিয়ে দিয়েছে তিন টেস্ট সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কা আসবে না। সর্বোচ্চ মহলের খবর এবং বিসিবির অতি দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে বিসিবি শ্রীলঙ্কা সফরের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও নেয়নি।

তাহলে ঐ সফর বা টেস্ট সিরিজের ভবিষ্যত কী? ক্রিকেট অনুরাগিদের ভেতরে তা নিয়ে একটা খটকা লেগেই আছে। করোনার প্রকোপ বেড়েছে বেশ। আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যাও দিনকে দিন বেড়ে চলেছে। ক্রিকেটার কেন প্রতিটি মানুষ চরম উদ্বেগের মধ্য দিয়ে সময় পার করছেন। সেখানে বিদেশে খেলতে যাওয়ার মত মানসিক অবস্থা ক্রিকেটারদের থাকবে কি না? সেটাও খুঁটিয়ে দেখার বিষয়।

বিসিবি এখন কী করবে? ভেতরের খবর আসলে কী? বাংলাদেশ জাতীয় দল কি সত্যিই শ্রীলঙ্কা যাবে? জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কার ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ হবে শ্রীলঙ্কায়?

বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান পরিষ্কার জানিয়েছেন, ‘এখন পর্যন্ত আমরা কোন সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করিনি। দল শ্রীলঙ্কা যাবে কি যাবে না? এটা আসলে পুরোই নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। অবস্থা কি দাঁড়ায় সেটাও খুঁটিয়ে দেখব। বর্তমান অবস্থায় সফর অনিশ্চিত। আর যদি অবস্থা আরও খারাপ হয়, তবে তো আরও অনিশ্চিত হবে।’

তারপরও আকরাম খান এখনই চূড়ান্ত কথা বলতে নারাজ। তার শেষ কথা, ‘আমরা করোনা পরিস্থিতি দেখে অবস্থা বুঝেই সিদ্ধান্ত নেবো। আর দিন দশেক দেখব আমরা। দেখা যাক, এর ভেতরে করোনা পরিস্থিতি কী দাঁড়ায়? পরিস্থিতি ভাল না হলে কিছুতেই দল পাঠানো হবে না। ক্রিকেটারদের জীবনের নিরাপত্তার বিষয়টি অগ্রাধিকার পাবে সবসময়। করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি মাথায় নিয়ে শ্রীলঙ্কা সফরের প্রশ্নই আসে না।’

চস/আজহার