অবশেষে নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্ত হলেন শ্রীশান্ত

আজ রবিবার (১৩সেপ্টেম্বর) ক্রিকেটের সমস্ত নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পেলেন ভারতীয় পেসার শ্রীশান্ত শর্মা। ২০১৩ সালে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে সকল প্রকার ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন ৩৭ বছর বয়সী এই ফাস্ট বোলার। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) থেকে আর কোনো বাঁধা থাকছে না তার প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে অংশ নিতে। লম্বা সময় পর ক্রিকেটে ফেরার জন্য ‘মুক্তি’ পাওয়ায় বেশ খুশি শ্রীশান্ত। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাকে দেখা না গেলেও ঘরোয়া ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন এই পেসার।

রবিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ব্যক্তিগত টুইটারে তিনি লিখেন, ‘আমি সকল প্রকার নিষেধাজ্ঞা থেকে এখন সম্পূর্ণরূপে মুক্ত। এখন থেকে আমি প্রতিটা কাজকেই সমান গুরুত্ব দেব হোক সেটা অনুশীলনেও। দলকে দেয়ার মতো আমার কাছে আর সর্বোচ্চ ৫-৭ বছর রয়েছে।’

‘দীর্ঘ প্রতীক্ষার পরে আমি আবার খেলতে পারি, তবে জাতীয় দলে এখন আর খেলার জায়গা নেই। এমনকি আমি চলতি সপ্তাহে কোচিতে একটি স্থানীয় টুর্নামেন্ট আয়োজনের পরিকল্পনাও করেছি যাতে আমি মাঠে নামতে পারি। যদিও করোনা ঝুঁকির দিকে নজর রেখে প্রথমে এর বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, কারণ কেরালায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে।’

এর আগে ২০১৩ সালের আইপিএলে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে যাবজ্জীবন নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল শ্রীশান্তকে। পরে গত বছর বিসিসিআইয়ের লোকপাল ডি কে জাইনের দ্বারা সেই শাস্তি কমিয়ে সাত বছর করা হয়েছিল। ভারতের জাতীয় দলের হয়ে শ্রীশান্ত সর্বশেষ মাঠে নেমেছিলেন ২০১১ সালের আগস্টে। এরপর থেকে তাকে আর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেখা যায়নি। ২০১৩ সালের ৯ মে খেলেন নিষেধাজ্ঞার আগে সর্বশেষ ম্যাচ।

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে এ যাবৎ শিকার করেছেন সর্বমোট ১৬৯টি উইকেট। অপরদিকে আইপিএলের খেলে ঝুলিতে পুরেছেন ৪০টি উইকেট। জাতীয় দলের হয়ে এখন পর্যন্ত ২৭টি টেস্ট, ৫৩টি ওয়ানডে এবং ১০টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন এই পেসার। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলা তার ম্যাচের সংখ্যা ৪৪।

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 32 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।