থুতু ছিটানোর জন্য ৪ ম্যাচ নিষিদ্ধ ডি মারিয়া

অলিম্পিক মার্সেইয়ের বিপক্ষে পিএসজির মৌসুম শুরুর ম্যাচে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়ের দিকে থুতু ছিটিয়ে ৪ ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন আর্জেন্টাইন তারকা ডি মারিয়া। তার শাস্তির বিষয়টি বুধবার এক বিবৃতিতে জানায় লিগ ওয়ান কর্তৃপক্ষ। ফরাসি পেশাদার লিগ অবশ্য থুতু ছিটানোর বিষয়টি উল্লেখ করেনি শাস্তিতে। শুধু ৪ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঘরের মাঠে পিএসজির ১-০ গোলে হারা সেই ম্যাচের যোগ করা সময়ে একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে ঘটে যাওয়া অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় লাল কার্ড পেয়েছিলেন দুই দলের মোট পাঁচজন- স্বাগতিকদের নেইমার, লেয়ান্দ্রো দানিয়েল পারেদেস ও লেইভিন কুরজাওয়া এবং মার্সেইয়ের জর্ডান আমাভি ও দারিও বেনেদেত্তো। পরে এদের প্রত্যেককে বিভিন্ন মেয়াদে নিষেধাজ্ঞার শাস্তিও দেওয়া হয়।

সেদিন ডি মারিয়ার কাণ্ড রেফারি ও ভিএরআরের চোখ এড়িয়ে যাওয়ায় শাস্তি পাননি তিনি। তবে মার্সেই কোচ আন্দ্রে ভিয়াস-বোয়াস দাবি করেন, তার খেলোয়াড়ের দিকে থুথু ছুড়েছিলেন দি মারিয়া। তার দাবির প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করে লিগ কর্তৃপক্ষ।

তার নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে আগামী মঙ্গলবার থেকে। তার মানে, আগামী রবিবার স্তাদ দে রাঁসের বিপক্ষে খেলতে বাধা নেই ৩২ বছর বয়সী এই ফুটবলারের। খেলতে পারবেন না অঁজি, নিম, দিজোঁ ও নঁতের বিপক্ষে ম্যাচে।

এদিকে মার্সেই ডিফেন্ডার আলভারো গনসালেসের বিরুদ্ধে নেইমার বর্ণবাদী আচরণের যে অভিযোগ এনেছিলেন, তার তদন্ত চলছে। আগামী বুধবার এলএফপি-র ডিসিপ্লিনারি কমিশনের বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। সেই ম্যাচে গনসালেসের মাথায় আঘাত করার অপরাধে দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হন নেইমার।

বায়ার্ন মিউনিখের কাছে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনাল হারের পর অবকাশ যাপনে ইবিজায় গিয়েছিলেন ডি মারিয়া। মৌসুম শুরুর আগে সেখান থেকেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন তিনি। যদিও কোভিড-১৯ পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়ে ফরাসি লিগের প্রথম ম্যাচেই মাঠে নেমেছিলেন তিনি।

চস/আজহার

শেয়ার করুন

The Post Viewed By: 44 People

Chattogram Somoy

চট্টগ্রাম থেকে পরিচালিত চট্টগ্রাম সময় একটি আধুনিক নিউজ পোর্টাল। ২৪ ঘন্টা খবরের সন্ধানে ছুটে চলা একদল সংবাদদাতা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে ২০১৯ এর জুলাইয়ে। কোনো একটা নির্দিষ্ট দিক নয়, চট্টগ্রাম সময় কাজ করছে প্রতিটা দিক নিয়ে। আমাদের ভবিষ্যৎ পথচলায় আপনাদের সাথী হিসেবে পেতে চাই।