বিজয় দিবসে শব্দ বাক্য আর ছবিতে সৌরভ ছড়িয়েছেন ক্রিকেটাররা

39
ads here

গতকালের ঢাকা শহরটা বিজয় দিবস উপলক্ষে ছিল লোকে লোকারণ্য। কিন্তু সেই অরণ্যে বাংলাদেশের সব ক্রিকেটারদের যোগ দেওয়ার সুযোগ মিলল না। তবে বাংলাদেশের ৪৯তম জন্মদিনে বায়ো-বাবল পরিবেশে হোটেলে বিশেষ সুরক্ষায় থাকা চলমান বঙ্গবন্ধু কাপ টি-টোয়েন্টিতে খেলা বাংলাদেশের সাবেক-বর্তমান অধিনায়ক কিংবা খেলোয়াড়রা শব্দ বাক্য আর ছবিতে নিজেদের ফেইসবুক পেইজ বা প্রোফাইলে ছড়িয়েছেন সৌরভ।

ads here

বাংলাদেশের ইতিহাসের সফলতম অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার পেইজে বিজয়ের শুভেচ্ছার সঙ্গে পতপত করে উড়ছে গর্বিত এই ভূখণ্ডের লাল-সবুজ পতাকা। কিন্তু ওটা কি শুধুই একটা পতাকা? ‘এটা আমার কাছে শুধু একটি পতাকাই না আমার অস্তিত্ব আমার অনুভূতি, আমার ভালোবাসা।’ প্রচণ্ড আবেগ মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে মাশরাফীর। নড়াইল-২ এর সরকারি দলের এই সাংসদ লিখেছেন, ‘আমি মরেও বারবার চাইব এ পতাকাতলে আসতে। আমি গর্বিত আমি একজন বাংলাদেশি। ৭১ এর সাহসী সব শহীদের প্রতি রইল বিনম্র শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা।’ মাশরাফীর পোস্টটা শেষ হয়েছে দেশের গানের একটি লাইন দিয়ে, ‘যে মাটির চির মমতা আমার অঙ্গে মাখা।’ শেষ কথা, ‘সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা’

পারিবারিক কারণে চলমান টি-টোয়েন্টি আসরের ফাইনাল খেলা বাদ দিয়ে সাকিব আল হাসানকে উড়াল দিতে হয়েছে আমেরিকায়। তার পোস্টের ছবিটাতে ওপরে ‘প্রাপ্তির বিজয়’ লেখা। মাঝে একটা লাল ক্রিকেট বল। এর নিচে আর চারটি গর্বিত শব্দ, ছোট্ট দুই বাক্যে, ‘আমাদের প্রশান্তি, আমাদের পরিচয়।’ আর পোস্টে লিখেছেন ‘১৬ ডিসেম্বর, মহান বিজয় দিবস। আজকের দিনেই বিশ্ব মানচিত্রে আমরা পেয়েছিলাম স্থান। পৃথিবী জেনেছিল আমাদের নতুন পরিচয়। বিজয় দিবসের এই মুহূর্তে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি পরম আরাধ্য এই বিজয় আনতে শেষ রক্তবিন্দুতে লড়ে যাওয়া প্রত্যেক সূর্যসন্তানকে। সবাইকে জানাচ্ছি মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।’

বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যান ও সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম পরিশ্রমী এই ইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান তার মনের গল্পটা ভাগ করে নিলেন বিজয়ের উৎসবের এই দিনে সবার সঙ্গে, ‘মাঠে আমরা জয় পাই। উৎসব করি। কিন্তু এটা সম্ভব হতো না যদি না এই দিনটা আসত।’ এর সঙ্গে স্পন্দিত হৃদয়ে মুশফিকের উচ্চারণ, ‘১৬ ডিসেম্বর, ১৯৭১। আমি প্রতিটি বল মোকাবিলা করার সময়, রান নেওয়ার সময় গর্ববোধ করি কারণ আমি আমার দেশের প্রতিনিধিত্ব করছি। গর্ব নিয়ে নিজ দেশের পতাকা ওড়াতে পারি, বলতে পারি আমি গর্বিত বাংলাদেশি। মাতৃভূমির বিজয় দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা। সব মুক্তিযোদ্ধাকে সশ্রদ্ধ সালাম।’

বিজয় দিবস উপলক্ষে স্মৃতিসৌধের ছবি দিয়ে ফেইসবুকে তামিম ইকবাল লিখেছেন, ‘আজ মহান বিজয় দিবস। সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।’

দেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ টিম বাসের সিটে বসে চমৎকার এক ছবি পোস্ট করেছেন নিজের। মাথায় বিজয়ের ব্যান্ড। হাতে বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকা। মুখে বিজয়ের হাসি। পোস্টে লিখেছেন, ‘১৯৭১ সালের আজকের এ দিনেই লাখো মানুষের আত্মত্যাগের বিনিময়ে বিশ্ব মানচিত্রে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ, এ দেশের মানুষ মুক্তি পায় পরাধীনতা থেকে। যাদের রক্তের বিনিময়ে, ত্যাগের বিনিময়ে আজ লাল-সবুজের জার্সি গায়ে জড়াতে পেরেছি তাদের সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করছি। সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।’

বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেট বৈশ্বিক সুপারস্টার মোহাম্মদ আশরাফুল দেশের জার্সিতে সেঞ্চুরির পর আকাশের দিকে দুহাত তুলে আছেন ছবিতে। সেখানে স্লোগান, ‘বিজয়ীর বিজয় হোক চিরন্তন।’ আর পোস্টে বিশ্ব ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট ব্যাটসম্যান লিখেছেন, ‘দেশের মুক্তিযুদ্ধের জন্য যে সমস্ত যোদ্ধা নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন, তাদের স্মৃতি চিরকাল মানুষের হৃদয়ে থাকবে। সবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।’

ওপেনার ইমরুল কায়েস লড়াকু। কত বাদ পড়েন। আবার ফেরেন। আবার বাদ। মাঠ ও মাঠের বাইরে নিয়মিত যুদ্ধের মধ্যে থাকা দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানের পোস্ট, ‘জীবন দিয়ে যুদ্ধ করে ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে এই বিজয় অর্জিত হয়। যতদিন পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশ থাকবে, বাঙালি জাতি থাকবে ততদিন এই দিনটির গুরুত্ব ও সম্মান অক্ষুন্ন থাকবে।’

আরেক ওপেনার এনামুল হক বিজয় বড় পোস্টের মধ্যে লিখেছেন, ‘৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে বিজয় ছিনিয়ে নিয়েছি আমরা। তাই, এই রক্তে কেনা বিজয়ের মূল্য বাংলাদেশিদের কাছে অসীম।’ আজ তারও জন্মদিন। সেই প্রসঙ্গ টেনে লেখা, ‘২৮ বছর আগে আজকের এই দিনে জন্মেছিলেন দেশসেরা অন্যতম ক্রিকেটার এনামুল হক বিজয়, বিজয়ের পক্ষ থেকে সবাইকে জানাই মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।’

চস/এএম

ads here