ইরাকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, লক্ষ্য মার্কিন দূতাবাস

30
বাগদাদের অত্যন্ত সুরক্ষিত গ্রিন জোনের প্রবেশ পথ। ফাইল ছবি: রয়টার্স
ads here
যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস লক্ষ্য করে ইরাকের রাজধানী বাগদাদে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে গতকাল রোববার। অন্তত আটটি কাতিউশা রকেট বাগদাদের অত্যন্ত সুরক্ষিত গ্রিন জোনের ভেতরে গিয়ে পড়ে, তাতে কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ইরাকি সামরিক বাহিনী ও মার্কিন দূতাবাস জানিয়েছে। ইরাকের সামরিক বাহিনী বলেছে, “আইনবিরোধী গোষ্ঠী আটটি রকেট ছুড়েছে।”

অধিকাংশ ক্ষেপণাস্ত্র গ্রিন জোনের আবাসিক কমপ্লেক্সে ও একটি নিরাপত্তা চেকপয়েন্টে আঘাত হানে, এতে বেশ কয়েকটি ভবন ও গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং একজন ইরাকি সৈন্য আহত হয়েছেন বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে সামরিক বাহিনী।

ads here

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সময় মার্কিন দূতাবাস কম্পাউন্ডের সাইরেনগুলোর শব্দ গ্রিন জোনজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। এই জোনটিতে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের ভবন ও বিদেশি মিশনগুলোর অবস্থান।

ক্ষেপণাস্ত্র-বিধ্বংসী ব্যবস্থা একটি রকেটকে প্রতিরোধ করে বলে জানিয়েছেন একজন নিরাপত্তা কর্মকর্তা, যার দপ্তর গ্রিন জোনের ভেতরেই।

হামলার নিন্দা করেছে মার্কিন দূতাবাস। এ ধরনের হামলা প্রতিরোধ করার জন্য পদক্ষেপ নিতে ও দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে ইরাকের সব রাজনৈতিক ও সরকারি নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তারা।

দূতাবাসের বিবৃতিতে বলা হয়, “যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস নিশ্চিত করছে, আন্তর্জাতিক জোন লক্ষ্য করে রকেট হামলা হয়েছে। প্রতিরোধে দূতাবাসের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পদক্ষেপ নিয়েছে। দূতাবাস কম্পাউন্ডে কিছু ক্ষয়ক্ষতি হলেও কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।”

 

ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের স্থাপনাগুলোর ওপর নিয়মিত ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর জন্য ইরান সমর্থিত মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলোকে দায়ী করে আসছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। তবে পরিচিত ইরান সমর্থিত কোনো গোষ্ঠী এ হামলার দায় স্বীকার করেনি। ইরাকের প্রেসিডেন্টের একজন মুখপাত্রও হামলার নিন্দা করেছেন।

 

চস/এএম

ads here