শুরু হলো বঙ্গবন্ধু মাউন্টেন বাইক চ্যালেঞ্জ ২০২০

একশ সাইক্লিস্ট আগামী তিনদিন পাড়ি দিবে পাহাড়ি আঁকা বাঁকা পথ

25
ads here

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সাজেক থেকে উদ্বোধন করা হলো বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডি সিএইচটি মাউন্টেন বাইক চ্যালেঞ্জ ২০২০।

ads here

সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে রাঙামাটির সাজেক থেকে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির জনকের পরিবার ক্রীড়ামোদী ছিলেন। শেখ জামাল, শেখ কামালের হাত ধরে দেশের ক্রীড়াঙ্গন আজ অনেক দূর এগিয়েছে। সম্ভাবনাময় পার্বত্য চট্টগ্রামে মাউন্টেন বাইক প্রতিযোগিতা পর্যটনখাতে বাড়তি মাত্রা যোগ করবে। মাউন্টেন বাইক প্রতিযোগিতা দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে সারা বিশ্বে পরিচিতি পাবে। ’

তিনি বলেন, ‘আমরা পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের পর্যটন সম্ভাবনাকে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে চাই। শান্তিপূর্ণ পার্বত্য অঞ্চলের প্রকৃতি, বৈচিত্র্য, ঐতিহ্য জীবণাচরন পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয়। এ বিষয়ে পরিকল্পনা মাফিক অবকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে। ’

সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামকে বাড়তি গুরুত্ব দেয় জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সমতলের মতো পাহাড়ও উন্নয়নের পথে হাঁটছে। ’

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন শরণার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব মো. শফিকুল আহম্মদ, খাগড়াছড়ির রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফয়জুর রহমান, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু, রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংশই প্রুই চৌধুরী প্রমুখ।

উদ্বোধনের পরপরনই দেশের বাছাইকৃত একশ সাইক্লিস্ট আগামী তিনদিনে তিনশ কিলোমিটার পাহাড়ি আঁকা বাঁকা পথ পাড়ি দেবে। প্রথমদিন সাজেক থেকে রাঙামাটি, মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) রাঙামাটি থেকে বান্দরবান এবং বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) বান্দরবান থেকে থানচি গিয়ে প্রতিযোগিতা শেষ হবে।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর বিকেলে থানচিতে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে প্রতিযোগিতা সমাপ্ত হবে।

 

 

 

চস/আজহার

ads here