সৌদির কাছে সামরিক সরঞ্জাম বিক্রি করবে যুক্তরাষ্ট্র

52
ডলার
ads here
সৌদি আরবের কাছে তিন হাজার স্মার্ট বোমা বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগনের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, স্মার্ট বোমাসহ অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম মিলিয়ে মোট ২৯০ বিলিয়ন ডলারের সামগ্রী বিক্রি করা হবে। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ২৪ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকারও বেশি।

ads here

হোয়াইট হাউজে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শেষ দিন আগামী ২০ জানুয়ারি। সে অনুযায়ী আর মাত্র তিন সপ্তাহের মতো ক্ষমতায় আছেন তিনি। মেয়াদের এই শেষ সময়ে এসেই সৌদি আরবের কাছে বিপুল পরিমাণ সামরিক সরঞ্জাম বিক্রির অনুমোদন দিলো তার প্রশাসন।

পেন্টাগনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত এই অস্ত্র বিক্রির ফলে বর্তমান ও ভবিষ্যত হুমকি মোকাবিলায় সমর্থ হবে সৌদি আরব।

নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অবশ্য সৌদি আরবের কাছে অস্ত্র বিক্রি বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছিলেন। ফলে হোয়াইট হাউজে তার আসন গ্রহণের আগেই তড়িঘড়ি করে অত্যাধুনিক মার্কিন সামরিক সরঞ্জাম সংগ্রহে আগ্রহী রিয়াদ।

জো বাইডেন বরাবরই ইয়েমেনে সৌদি জোটের সামরিক আগ্রাসনের বিরোধী। জয় নিশ্চিত হওয়ার পর পুরো দুনিয়া যখন বাইডেনকে অভিনন্দন জানাতে ব্যস্ত তখন কার্যত নীরব থাকতে দেখা গেছে সৌদি আরবের ডি ফ্যাক্টো শাসক যুবরাজ এমবিএসকে। যথেষ্ট সময় নিয়ে পরে অবশ্য নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে অভিনন্দন জানান তিনি।

বাইডেনের জয়ের মধ্য দিয়ে দৃশ্যত হোয়াইট হাউজে নিজের ঘনিষ্ঠ বন্ধুকে হারিয়েছে রিয়াদ। সাংবাদিক জামাল খাসোগির নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সৌদি যুবরাজের জবাবদিহিতার দাবি তুলেছিলেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট। নির্বাচনি প্রচারে রিয়াদের সঙ্গে সম্পর্ক পুনর্মূল্যায়নের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন তিনি। আহ্বান জানিয়েছেন ইয়েমেনে সৌদি আগ্রাসনে মার্কিন সহায়তা বন্ধের। এমন বাস্তবতায় সৌদি আরবের কাছে ২৯০ বিলিয়ন ডলারের সামরিক সরঞ্জাম বিক্রিতে ট্রাম্প প্রশাসনের অনুমোদন তাৎপর্যপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

 

 

চস/আজহার

ads here