ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব সরিয়ে নিলো ট্রাম্পের বক্তব্যের ভিডিও

38
ads here

ইউটিউব সমর্থকদের প্রতি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেয়া বক্তব্যের ভিডিও সরিয়ে নিয়েছে ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউব। ট্রাম্প তার সমর্থকদের বাড়ি ফিরে যেতে বললেও তার বক্তব্যে আবারও নির্বাচনে কারচুপির অসত্য অভিযোগ তুলেছিলেন।

ads here

ফেসবুক ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য সম্পর্কে জানিয়েছে, ‘আমরা এটি সরিয়ে নিয়েছি। কারণ আমাদের বিশ্বাস এটি চলমান সহিংসতা স্তিমিত করার চেয়ে সহিংসতা আরও উস্কে দিতে ভূমিকা রাখবে।’

টুইটার ভিডিওটি সরিয়ে নেওয়া ছাড়াও ১২ ঘণ্টার জন্য তার অ্যাকাউন্টটি ব্লক করে দেয়। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ট্রাম্প নিয়ম ভঙ্গ করেছেন এটা প্রতীয়মান হওয়ায় পরবর্তী ১২ ঘণ্টার জন্য তার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দেওয়া হলো। প্রথমবার তাকে সতর্ক করা হলো। ফের একই ধরনের ঘটনা ঘটলে তার অ্যাকাউন্টটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে। ইউটিউব জানিয়েছে, তারা ভিডিওটি সরিয়ে নিয়েছে কারণ সেটি ‘নির্বাচনে কারচুপি সংক্রান্ত তথ্য ছড়ানোর নীতি’ ভঙ্গ করেছে।

বুধবারের সহিংসতা শুরু হওয়ার আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ন্যাশনাল মল চত্বরে তার সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, নির্বাচন চুরি করা হয়েছে। ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই যখন ক্যাপিটল ভবনের ভেতরে ও বাইরে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে, তখন তিনি আরও একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। এতে আবারও তিনি নির্বাচনে কারচুপির অসত্য অভিযোগ তোলেন।

এদিকে মার্কিন পার্লামেন্ট ভবনে (ক্যাপিটল হিল) ট্রাম্প সমর্থকদের নজিরবিহীন তাণ্ডবের ঘটনায় এক নারীসহ অন্তত চার জন নিহত হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত তাদের পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সহিংসতার পর ফের শুরু হওয়া কংগ্রেস অধিবেশনে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে ২০ জানুয়ারি শপথ গ্রহণের অনুমতি দেন আইনপ্রণেতারা। সূত্র: বিবিসি।

চস/আজহার

ads here