অবশেষে গ্রেফতার শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরু

32
ads here

পাহাড় দখলসহ নানা অপকর্মের জন্য আলোচিত চট্টগ্রাম নগরীর নাছিয়া ঘোনা এলাকার নুরে আলম ওরফে নুরুকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ads here

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে শুক্রবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. কামরুজ্জামান।

গোয়েন্দা পুলিশ ও আকবর শাহ থানা পুলিশের যৌথ দল তাকে গ্রেপ্তার করেছে জানালেও বিস্তারিত কিছু বলেননি তিনি।

পরিদর্শক কামরুজ্জামান বলেন, দুপুরে নগর পুলিশের পশ্চিম জোনের উপ-কমিশনার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে।

চট্টগ্রামের পূর্ব ফিরোজশাহ কলোনির নাছিয়া ঘোনা এলাকায় সব অপকর্মের ‘হোতা’ নুরুর বিরুদ্ধে পাহাড় কাটা, কাঠ পাচার, মাদক বিক্রিসহ নানা অভিযোগে ২৮টি মামলা আছে নগরীর আকবর শাহ ও খুলশী থানায়।

পাশাপাশি ২০১৪ সালের একটি অস্ত্র মামলায় নুরুর ১৭ বছরের সাজা হয়েছিল। ২০১৯ সালে নুরুর বিরুদ্ধে সাজার পরোয়ানা হলেও সেটির কোন রেকর্ড ছিল না থানায়। এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পর বৃহস্পতিবার নুরুর সাজার পরোয়ানা আসে থানায়।

অভিযোগ রয়েছে, নুরুর পরিবারের সদস্যরা নাছিয়া ঘোনা এলাকায় ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রম’ করেন। নুরুর মতো তার ভাই জানে আলমও সেখানে পাহাড় কেটে বসতি গড়ে তুলেছেন।

নুরুর স্ত্রী, তার ভাই জানে আলমের স্ত্রী ও বোন রুবি তাদের অনুসারী পরিবারের নারীদের নিয়ে পুলিশের উপর ইট ছোঁড়ে বলে জানান স্থানীয় কয়েকজন। নুরুর স্ত্রী ও বোন সেখানে ‘ইয়াবা কারবার নিয়ন্ত্রণ করছেন’ বলেও অভিযোগ রয়েছে।

গত ২৬ ডিসেম্বর নুরুকে ধরতে নাছিয়া ঘোনায় অভিযানে গেলে সেখানে পুলিশের উপর হামলা করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে নুরুর এক সহযোগীকে গ্রেপ্তার করলেও পালিয়ে যান তিনি। এরপর ৩১ ডিসেম্বর ভোরে অভিযান চালিয়ে নুরুর ১২ সহযোগীকে গ্রেপ্তার করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। এরপর ৪ জানুয়ারি তৃতীয় দফায় নাছিয়া ঘোনায় অভিযান চালিয়েও তাকে ধরতে পারেনি পুলিশ।

 

চস/আজহার

ads here