টনসিল অপারেশনে ভালো নাকি খারাপ, কী বলছে গবেষণা

135
  |  শনিবার, আগস্ট ১০, ২০১৯ |  ১:৩০ অপরাহ্ণ
ads here

টনসিল খুবই অসহ্য একটি রোগের নাম। এটির কারণে গলার দুপাশে ফুলে উঠে খাওয়া দাওয়াসহ স্বাভাবিক প্রায় সকল কাজ বাধাগ্রস্ত হয়। টনসিল সব সময় যে অপারেশন করতে হয় তা নয় কখনও কখনও ওষুধেও সেরে যায়। তবে গবেষণা বলছে টনসিল অপারেশনের পর নাকি জীবন যাত্রার মানের উন্নতি ঘটে।

ads here

আমেরিকার দুইটি গবেষণার ফলাফল থেকে জানা যায় যে, বারবার টনসিল প্রদাহে আক্রান্ত শিশু ও বয়স্ক রোগীদের টনসিল অপারেশন করলে জীবনযাত্রার মানের যথেষ্ট উন্নতি ঘটে। একটি গবেষণায় ৯২ জন প্রায়ই টনসিল প্রদাহে আক্রান্ত শিশুর পিতা-মাতার মতামত সংগ্রহ করা হয় টনসিল অপারেশনের পূর্বে অপারেশনের ৬ মাস ও ১ বছর পর। ১ বছরের মধ্যে ৩ বার বা তার চেয়ে বেশি টনসিল প্রদাহ হলে তাকে দীর্ঘমেয়াদি টনসিলাইটিস বলা হয়। নিউইয়র্কের ব্রকলিনকস্থ স্টেটস ইউনিভার্সিটির ডাউনস্টেট মেডিক্যাল সেন্টারের ডাঃ এন এ গোল্ডস্টেইন রয়টার্স হেলথকে জানান যে, গড় বয়স ১০.৬ বছরের শিশুদের মধ্যে টনসিল অপারেশনের পর জীবনযাত্রার মানের উল্লেখযোগ্য উন্নতি হয়েছে, যেমন তাদের শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়া, খাওয়া-দাওয়া এবং আচার-ব্যবহারের উন্নতি লক্ষণীয়।

উপরোক্ত শিশুদের অপারেশনের পর মানসিক, শারীরিক ও সামাজিক বিকাশ ঘটেছে এবং সাস্থ্যের যথেষ্ট উন্নতি ঘটেছে। ডাঃ এন এ গোল্ডস্টেইনের মতে বাবা-মায়েরা আরো জানিয়েছেন যে, শিশুদের গলায় প্রদাহে ভোগেনি, ডাক্তারের কাছে যেতে হয়নি এবং অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করতে হয়নি। এমনকি শিশুদের ডে-কেয়ার বা স্কুলের কর্মকাণ্ড স্বাভাবিক রয়েছে।

একইভাবে বারবার টনসিল প্রদাহে আক্রান্ত ৭২ জন বয়স্কদের অপারেশন পূর্ববর্তী এবং ৬ মাস ও ১ বছর পরবর্তী জীবনযাত্রার মানের তুলনা করলে দেখা গেছে যে, অপারেশনের পর দৈনন্দিন কাজে অধিক উন্নতি ঘটেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যারোলিনাস্থ ডিউক ইউনিভার্সিটি অব মেডিসিনের ডাঃ ডেভিট এল. উইটসেল ও তার সহকর্মীরা জানান যে, ৯৮% রোগীর সামান্য ইনফেকশন রয়েছে এবং ৭৭% পূর্ণ আরোগ্য লাভ করেছে। বয়স্ক রোগীরা আরো জানায় যে, গলা ব্যথা, টনসিলে ব্যথা আর হয়নি, শ্বাস-নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ হয়নি এবং ডাক্তারের কাছেও যেতে হয়নি। নিউইয়র্কের ওয়েইল করনেল মেডিক্যাল কলেজের ডাঃ মাইকেল জি স্টুয়ার্ট, যিনি এ গবেষণার সাথে সংশ্লিষ্ট ছিলেন না, বলেন যে, বারবার টনসিলে আক্রান্ত রোগী এবং টনসিল অপারেশনের ক্ষেত্রে উক্ত গবেষণাগুলো বিশেষ অবদান রেখেছে।

চস/আজহার

ads here