আজ পবিত্র লাইলাতুল কদর

29
 ডেস্ক রিপোর্ট |  রবিবার, মে ৯, ২০২১ |  ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ
আজ পবিত্র লাইলাতুল কদর
ads here
পবিত্র কোরআন নাজিলের রাত লাইলাতুল কদর ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের কাছে এক মহিমান্বিত রাত। রবিবার (৯ মে) দিবাগত রাতে পালিত হবে ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের কাছে ফজিলতপূর্ণ এ উপলক্ষ।

অন্যান্য সময় এক হাজার মাস ইবাদত করলে যে সওয়াব পাওয়া যায়, কদরের এই রাতে ইবাদত করলে তার চেয়ে বেশি সওয়াব পাওয়া যায়।

ads here

পবিত্র শবে কদর কোন রাতে, এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কোথাও কিছু বলা হয়নি। তবে বুজুর্গরা বিভিন্ন গবেষণা ও আলামত দেখে অভিজ্ঞতার আলোকে ২৬ রমজান দিবাগত রাতকে শবে কদর হওয়ার বিষয়ে মত ব্যক্ত করেছেন।

সে হিসেবে আজ সূর্যাস্তের পর শুরু হবে হাজার মাসের চেয়ে উত্তম ও মহিমান্বিত রজনী শবে কদর। এ রাতের মর্যাদা ও বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনে ‘কদর’ নামে স্বতন্ত্র একটি সুরা নাজিল করেছেন। ফলে এ রাত গুরুত্ব ও তাৎপর্যের দিক থেকে বছরের অন্যান্য রাতের চেয়ে শ্রেষ্ঠত্ব লাভ করেছে।

মূলত রমজানের শেষ দশ দিনের বেজোড় রাতগুলোতে শবে কদর রয়েছে বলে বর্ণনা রয়েছে। তাই রমজান শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত এই সম্ভাবনা থেকে যায়।

শবে কদর প্রসঙ্গে হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘যে ব্যক্তি ইমানের সঙ্গে ও সওয়াবের আশায় রমজানের রোজা রাখবে, তার পূর্ববর্তী সব গোনাহ মাফ করে দেওয়া হবে। আর যে ব্যক্তি ইমানের সঙ্গে এবং সওয়াবের আশায় কদরের রাতে (ইবাদতে) দাঁড়াবে তার পূর্ববর্তী সব গোনাহ মাফ করে দেওয়া হবে।’ -সহিহ বোখারি

এ রাতের আমলের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। কিন্তু বেশি বেশি নফল নামাজ, কোরআন তিলাওয়াত, জিকির-আজকার ও তাসবিহ পাঠের কথা বলা হয়েছে।

হজরত আয়েশা সিদ্দিকা (রা.) হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসুল (সা.)! আমি যদি লাইলাতুল কদর সম্পর্কে জানতে পারি, তাহলে আমি ওই রাতে আল্লাহর কাছে কী দোয়া করব? হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, তুমি বলবে, ‘আল্লাহুম্মা ইন্নাকা আফুউন, তুহিব্বুল আফওয়া; ফাফু আন্নি’ অর্থাৎ হে আল্লাহ! আপনি ক্ষমাশীল, ক্ষমা করতে ভালোবাসেন; তাই আমাকে ক্ষমা করে দিন। -ইবনে মাজা

এ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তাঁরা শবে কদরের পবিত্র এই রজনীতে করোনা মহামারি থেকে রক্ষার জন্য মহান আল্লাহর দরবারে ইবাদত ও দোয়া করার আহ্বান জানিয়েছেন।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মুসলমানদের মতো বাংলাদেশের মুসলমানরাও গুনাহ মাফ এবং অধিক সওয়াব হাসিলের আশায় নফল ইবাদত, কোরআন তিলাওয়াত, জিকির-আজকারের মধ্য দিয়ে রাতটি অতিবাহিত করবেন। শবে কদর উপলক্ষে সোমবার সরকারি ছুটি থাকবে।

চস/স

ads here