ডিপিএল

জয়ে ফিরলো শেখ জামাল

26
  |  বুধবার, জুন ১৬, ২০২১ |  ৩:৪৭ অপরাহ্ণ
ads here

টানা তিন জয়ের পর আবাহনী লিমিটেডের কাছে রীতিমতো ধরাশায়ী হয়েছিল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। তবে পরের ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়াল তারা। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ওল্ড ডিওএইচএস স্পোর্টিং ক্লাবকে ১৬ রানে হারিয়ে সুপার লিগে খেলার আশাও জোরালো করল তারা।

ads here

সাভারের বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে বৃষ্টির কারণে ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমিয়ে আনা হয় ইনিংসপ্রতি ১৩ ওভার করে। যেখানে আগে ব্যাট করে ১৩ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২০ রান করে শেখ জামাল। জবাবে ১৩ ওভারে ১০৪ রানের বেশি করতে পারেনি ডিওএইচএস।

রান তাড়া করতে নেমে ডিওএইচএসের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন রায়ান রাফসান রহমান। এছাড়া মাহমুদুল হাসান জয় ৩৩ ও আনিসুল ইসলাম ইমনের ১৪ রান ব্যতীত আর কেউই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। ফলে ৭ উইকেট হারিয়ে ১০৪ রানে থেমে যায় তাদের ইনিংস।

চলতি লিগে শেখ জামালের ষষ্ঠ জয়টির নায়ক জিয়াউর রহমান। প্রথমে ব্যাট হাতে ৭ বলে ১২ রানের পর বল হাতে ২ উইকেট নিয়েছেন তিনি। তবে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন প্রথম ইনিংসে বল হাতে ৫ উইকেট নেয়া আনিসুল ইসলাম ইমন।

বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচটিতে শেখ জামালকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার মোহাম্মদ আশরাফুল ও সৈকত আলি। তাদের জুটিতে আসে ৬৯ রান। ইনিংসের অষ্টম ওভারে প্রথমবারের মতো আক্রমণে এসে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে দুজনকেই আউট করেন ইমন।

সৈকতের ব্যাট থেকে আসে ২৩ বলে ৩৭ রানের ইনিংস, ঝড়ো শুরুর পর আশরাফুল করেন ২২ বলে ২৬ রান। এরপর জিয়াউর রহমান ১২, ইমরুল কায়েস ১১ ও নুরুল হাসান সোহান ১১ রান করে দলীয় সংগ্রহটা ১২০ রানে নিয়ে যান।

আনিসুল ইমনের পরের তিন উইকেট এসেছে তার ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ও ইনিংসের ১২তম ওভারে। সেই ওভারের প্রথম বলে ইমরুল, তৃতীয় বলে মোহাম্মদ এনামুল ও শেষ বলে সাজঘরে ফেরেন তানভীর। ইমনের পাঁচটি উইকেটই ছিল ক্যাচ আউট।

খুব ভালো বোলিং না করলেও, নিজের ফিল্ড সেটিং মাথায় রেখে বোলিংয়ের পুরস্কারই মূলত পেয়েছেন তিনি। সবমিলিয়ে ২ ওভারে ২৩ রান খরচায় নিয়েছেন ৫ উইকেট। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে আগের ২০ ম্যাচের মধ্যে ৭ ম্যাচ বোলিং করে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। এবার এক ম্যাচেই নিলেন ৫টি।

চলতি লিগে আনিসুল ইমনের আগে ফাইফার নিয়েছেন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের মোস্তাফিজুর রহমান (২২ রানে ৫ উইকেট) ও শেখ জামালের সালাউদ্দিন শাকিল (১৬ রানে ৫ উইকেট)।

চস/আজহার

ads here