কোভিশিল্ড নিলে ইউরোপের ১৬ দেশে যাওয়া যাবে

43
  |  রবিবার, জুলাই ১৮, ২০২১ |  ৫:১৪ অপরাহ্ণ
ads here

করোনা টিকা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভারতীয় সংস্করণ কোভিশিল্ডকে স্বীকৃতি দিয়েছে ফ্রান্স, জার্মানিসহ ইউরোপের ১৬ টি দেশ। এই টিকার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার (এসআইআই) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদর পুনাওয়ালা শনিবার এক টুইটে এ তথ্য জানিয়েছেন।

ads here

আদর পুনাওয়ালা জানান- ফ্রান্স, জার্মানি, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, বুলগেরিয়া, ফিনল্যান্ড, গ্রিস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, লাটভিয়া, নেদারল্যান্ডস, স্লোভেনিয়া, স্পেন, সুইডেন এবং সুইজারল্যান্ড।

টুইটে এসআইআইয়ের প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘ইউরোপের ১৬ টি দেশে কোভিশিল্ড স্বীকৃতি পেয়েছে- এটা অবশ্যই ইউরোপে যেতে ইচ্ছুক ভারতীয়দের জন্য বড় সুখবর। তবে টিকার ডোজ সম্পূর্ণ করা ছাড়াও আর একটি বিষয়ে ভারতীয়দের যত্নশীল হওয়া প্রয়োজন।’

‘আর তা হলো- ইউরোপের বিভিন্ন দেশে করোনা বিষয়ক বিধিনিষেধে পার্থক্য থাকতে পারে। ভারতের যেসব নাগরিক ইউরোপ ভ্রমণে যাবেন-তাদেরকে এসব বিধিনিষেধ মেনে চলার আহ্বান জানাচ্ছি।’

মহামারি পরিস্থিতিতে ইউরোপে ভ্রমণের ক্ষেত্রে গত জুনে নতুন নিয়ম জারি করেছে ইউরোপের ২৮ টি দেশের ঐক্যসংস্থা ইউরোপীয় ইউনিয়ন। সে নিয়ম অনুযায়ী, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ ও চিকিৎসা বিষয়ক নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউরোপিয়ান মেডিসিন এজেন্সি (ইএমএ) যেসব টিকা স্বীকৃতি দিয়েছে, সেই টিকাসমূহের ডোজ গ্রহণকারীদেরই কেবল গ্রিন পাস বা ঝুঁকিমুক্ত সনদ দেওয়া হবে।

ফাইজার-বায়োএনটেক, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, মডার্না, জনসন অ্যান্ড জনসন ছাড়া আরও যেসব টিকা ইএমএ গত জুনে স্বীকৃতি দিয়েছিল সেগুলো হলো- ফাইজার-বায়োএনটেকের ইউরোপীয় সংস্করণ কেমিরনাটি, অক্সফোর্ড- অ্যাস্ট্রাজেনেকার ইউরোপীয় সংস্করণ ভ্যাক্সজারভ্রিয়া এবং জনসন অ্যান্ড জনসনের ইউরোপীয় সংস্করণ জ্যানসেন।

এই তালিকায় কোভিশিল্ডের নাম না থাকায় বেশ বিপাকে পড়ে ইউরোপে যেতে ইচ্ছুক ভারতীয়রা, যারা কোভিশিল্ড টিকার ডোজ গ্রহণ করেছেন। তবে ২৮ জুন এক টুইটবার্তায় আদর পুনাওয়ালা আশ্বাস দিয়েছিলেন, নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও কূটনৈতিক পর্যায়ে খুব দ্রুত বিষয়টির সুরাহা হবে বলে আশা করছেন তিনি।

চলতি বছর ১৬ জানুয়ারি থেকে গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে ভারত। সেই কর্মসূচিতে ব্যাপক হারে ব্যবহার করা হয়েছে সেরামের উৎপাদিত কোভিশিল্ড টিকা।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গণটিকাদান কর্মসূচির আওতায় ভারতে ৩২ কোটিরও বেশি মানুষকে কোভিশিল্ড টিকার ডোজ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র : এএনআই, এনডিটিভি

 

চস/আজহার

ads here