সাপ আর টাকি মাছের মাঝে বন্ধুত্ব

54
 মো. মইনুর রহমান লাদেন |  বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২৬, ২০২১ |  ৬:১৩ অপরাহ্ণ
ads here

সাপ আর টাকি মাছের মাঝে খুব বন্ধুত্ব ৷ কিন্তু সাপ ছিলো বেজায় অহংকারী ৷ অহংকারের বশে সে কখনো ডানে, কখনো বাঁয়ে এভাবে হেলেদুলে চলত ৷ ভরা বর্ষায় দুই বন্ধু একদিন ঘুরতে বের হলো ৷ সাপ তার স্বভাব সুলভ রাজকীয় ভঙ্গিতে ডানে বাঁয়ে হেলে দুলে চলতে লাগল ৷ এতে সাপের টাকি মাছের সাথে চলতে সমস্যা হচ্ছিলো ৷

ads here

দু’জনের চলার পথের প্রতিবন্ধকতা দূর করার জন্য টাকি মাছ সাপকে বললো, “বন্ধু, তুমি একটু সোজা হয়ে হাঁটলেইতো পার ৷”

সাপ বললো, “বন্ধু, যারে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা ৷ তুমি আসলে আমাকে দেখতে পারো না, তাই আমার চলন তোমার কাছে বাঁকা মনে হয় ৷”

টাকি মাছ বললো, “ব্যাপারটা আসলে তা নয় ৷ তোমার বাঁকা চলার কারনে আমি তোমার পাশাপাশি হাঁটতে পারছি না ৷”

সাপ বললো, “বাপ-দাদার চৌদ্দ পুরুষ ধরে আমরা এভাবে চলে আসছি, আর তুমি আসছো আমাকে পথ চলা শেখাতে?”

একেতো টাকি মাছের চেয়ে লম্বা বলে অহংকারে সাপের পা পড়ে না, তার উপর সাপের অন্তর ভরা বিষ ৷ টাকি মাছ যতই তাকে বোঝাতে চায় ততই সে ফোঁস ফোঁস করে ফুলেতে থাকে ৷ তর্ক- বিতর্কের এক পর্যায়ে তারা জেলের জালে ধরা পড়ে ৷ জেলে সাপকে মেরে সোজা করে ঝুলিয়ে রাখে ৷ টাকি মাছ তখন আফসোস করে বললো, “বন্ধু, সেইতো সোজা হইলি, তাও মরনের পর!”

অহংকার আর অন্তর ভরা বিষ নিয়ে যারা জীবন পরিচালনা করেন, তারা আশা করি এবার একটু সোজা পথে চলবেন ৷ আমরা যারা অহংকারী, সুদ, ঘুষ, কালোবাজারি বিভিন্ন অবৈধ কাজে লিপ্ত আছি, তারাও একটু সোজা হই ৷ মরনের পর সোজা হলেও কোন লাভ হবে না, করোনা ভাইরাস কিন্তু ঘুষ নেয় না।
কবি পরিচিতিঃ কবি ও লেখক মোঃ মইনুর রহমান লাদেন ২০০৩ সালের ১৩ অক্টোবর চট্টগ্রাম বিভাগের কক্সবাজার জেলার হাজীপাড়া গ্রামে বা দক্ষিণ এশিয়ার ঐতিহ্যবাহিক শ্রেষ্ট তম পর্যটক নগরি শহরে, কক্সবাজারে এক মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। এ ক্ষুদ্র কবির সাফল্য কামনা করছি।

লেখক: মো. মইনুর রহমান লাদেন

ads here