এমন হারে শিক্ষা হয়েছে অজিদের

77
ads here

উইকেট আছে ৯টি, ৩৬ বলে প্রয়োজন মাত্র ৩৯ রান। এই ম্যাচ অস্ট্রেলিয়ার মতো দল হারতে পারে! কিন্তু চোখ কপালে ওঠার মতো সেই নাটকই মঞ্চস্থ হয়েছে শুক্রবার সাউথ্যাম্পটনে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটি অস্ট্রেলিয়া শেষ পর্যন্ত হেরে গেছে। ম্যাচের পর অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বলছেন, তাদের শিক্ষা হয়েছে।

ads here

তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি ইংল্যান্ড জিতেছে ২ রানে। শেষ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ১৫ রান। দ্বিতীয় বলে মার্কাস স্টয়নিস বিশাল এক ছক্কা মারলেও সুবিধা করতে পারেননি আর।

ম্যাচ শেষে ইংল্যান্ডকে প্রাপ্য কৃতিত্ব দিলেন ফিঞ্চ। পাশাপাশি বললেন নিজেদের ঘাটতি মেটানোর তাগিদের কথা।

“ আমরা জানতাম, ইংল্যান্ড প্রবলভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবে। তারা খুব ভালোভাবে পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করেছে। ১২ থেকে ১৮ ওভার পর্যন্ত আমরা বাউন্ডারি আদায় করতে ধুঁকেছি। এবারই প্রথমবার এরকম হলো না। এটা নিয়ে আমরা কাজ করছি। যতক্ষণ পর্যন্ত ছেলেরা শিখছে এবং উন্নতি করছে… শিক্ষা এবারও হয়েছে।”

১৬৩ রান তাড়ায় উদ্বোধনী জুটিতে ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার ৯৮ রান তুলে ফেলেছিলেন ১১ ওভারেই। ৩২ বলে ৪৬ রান করে ফিঞ্চ আউট হওয়ার পর স্টিভেন স্মিথ নেমে প্রথম দুই বলেই মেরেছিলেন বাউন্ডারি। একটু পর মারেন ছক্কা। সব মিলিয়ে অনায়াস জয়ের পথে ছিল অস্ট্রেলিয়া।

কিন্তু আদিল রশিদের এক ওভারে স্মিথ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল বাজে শটে বিদায় নিলে ম্যাচের মোড় বদলের শুরু। পরের ওভারে ৫৮ রান করা ওয়ার্নার বাজে শটে ফিরলে চাপে পড়ে যায় দল। সেখান থেকে তারা আর বের হতে পারেনি।

ম্যাচের পর প্রশ্ন উঠল স্মিথ-ম্যাক্সওয়েলের শট নির্বাচন নিয়ে। তবে ফিঞ্চ দায় দিলেন ওয়ার্নার ও নিজেকে।

“ওরা দুজনই পরিকল্পনা অনুযায়ীই শট খেলেছে। যদি পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন আলাদা করে ভাবেন, তাহলে আরেকটু গভীরভাবে বুঝতে পারবেন। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ব্যাপারটিই হলো সুযোগ খোঁজা।”

“আমি বরং ডেভি (ওয়ার্নার) ও আমাকেই বেশি দায় দেব। আমরা দুজনই ভালো খেলছিলাম, কিন্তু কেউই ম্যাচ জয়ের মতো অবদান রাখতে পারিনি।”

ads here