spot_img

৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, সোমবার
২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সর্বশেষ

রাজধানীতে বিএনপি ও পুলিশের সংঘর্ষ চলছে

বিএনপির কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজধানীর বিভিন্ন প্রবেশ মুখে সকাল থেকেই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এর মধ্যে রাজধানীর ধোলাইখাল মোড়, নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে। পাশাপাশি গাবতলী ও উত্তরায় আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় রাজধানী থেকে বিএনপির বেশকিছু নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

শনিবার (২৯ জুলাই) বেলা ১১টার পর ধোলাইখালে সংঘর্ষ শুরু হয়। এদিন সকাল থেকেই স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা ধোলাইখালে অবস্থান নেয়। পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে চাইলেই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের সরিয়ে দিতে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে পুলিশ। জবাবে ইট-পাটকেল ছোড়েন অবস্থানকারীরা। এতে পিছু হটেছে পুলিশ। অন্যদিকে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে বিএনপির সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে দুজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদল নেতা সাগর প্রধান।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা বলেন, বিএনপি অনুমতি ছাড়া কর্মসূচি পালন করতে চাচ্ছে। যান চলাচল বন্ধ করে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে দেওয়া হবে না।

গাবতলী: রাজধানীর গাবতলীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এদিন সকাল ১২টায় রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনাল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এসময় ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমানসহ ১৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশের উপকমিশনার (মিরপুর বিভাগ) জসিম উদ্দীন মোল্লা সাংবাদিকদের জানান, আমানকে গ্রেপ্তার নয়, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হচ্ছে।

উত্তরা: রাজধানীর উত্তরায় বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। সকাল সাড়ে ১১টার পর দুই দলের নেতাকর্মীদের মাঝে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও ইটপাকেল ছোড়ার ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে, তবে শুরুতে কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি।

এদিন সকালে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে বিএনপির পাঁচ থেকে সাতশ নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে উত্তরার হাউজ বিল্ডিং এলাকায় বিএনএস টাওয়ারের সামনে যান। এ সময় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা মালেকা বানু আদর্শ বিদ্যানিকেতনের গলি থেকে মূল সড়কের দিকে আসেন। পরে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এসময় পথচারী ও স্থানীয় লোকজনের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে, বিএনপির কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজধানীর প্রবেশ মুখ যাত্রাবাড়ী এলাকার দনিয়া কলেজের সামনে অবস্থান নিয়েছেন ব্যাপক সংখ্যক পুলিশ সদস্য। রাখা হয়েছে এপিসি গাড়ি, জলকামান।

এছাড়াও সকাল থেকে রাজধানীর অন্যতম প্রবেশমুখ আমিনবাজারে ব্যাপক সংখ্যক পুলিশের সতর্ক অবস্থান দেখা যায়। তবে বিএনপি কিংবা অন্যদলের কোনো নেতাকর্মীর দেখা মেলেনি। আর ব্যস্ততম ঢাকা-আরিচা মহাসড়কও ছিলো ফাঁকা।

অপরদিকে আশুলিয়ার ধউর এলাকায় গুরুত্বপূর্ণ রাজধানীর আরেকটি প্রবেশমুখেও একি চিত্র লক্ষ করা গেছে। এখানেও পুলিশের সতর্ক অবস্থান থাকলেও দেখা যায়নি বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিপক চন্দ্র সাহা বলেন, আমরা নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে সার্বক্ষণিক তৎপর রয়েছি। যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ সদস্যরা প্রস্তুত রয়েছেন।

এদিকে বিএনপির কর্মসূচি ঘিরে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ‘সতর্ক পাহারায়’ মাঠে রয়েছেন আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এর আগে নয়াপল্টনে বিএনপি মহাসমাবেশে শনিবার রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ প্রবেশমুখগুলোয় অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করে। বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এই অবস্থান কর্মসূচি পালন করার কথা জানিয়েছে বিএনপি।

তবে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কোনো দলকেই শনিবারের অবস্থান কর্মসূচি পালনের জন্য অনুমতি দেয়া হয়নি। সূত্র: বিডি-জার্নাল

চস/স

Latest Posts

spot_imgspot_img

Don't Miss