spot_img

৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, বুধবার
২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সর্বশেষ

বিয়ের কেনাকাটা করতে গিয়ে খণ্ড-বিখণ্ড লাশ হয়ে ফিরলেন শেফালি

ময়মনসিংহ নগরীর পঁচা পুকুরপাড় এলাকার রেলক্রসিংয়ে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) রাত ১০টা ২৫ মিনিটের দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। রেললাইনে উঠে যাওয়া একটি অটোরিকশাকে জামালপুরগামী ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস ট্রেন ধাক্কা দিলে তারা কাটা পড়েন।

নিহতরা হলেন- ময়মনসিংহ সদরের উজান বাড়েরা গ্রামের আবদুর রহমান (৬২) ও তার ভাতিজি শেফালি আক্তার (৪৫)। তারা বিয়ের কেনাকাটা শেষে বাড়ি ফিরছিলেন।

জানা যায়, জামালপুরগামী আন্তঃনগর ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস ট্রেনটি ময়মনসিংহ জংশন ছাড়ার পর নিয়মানুযায়ী মিন্টু কলেজ রেলক্রসিং ও নতুন বাজার রেলক্রসিংয়ে প্রতিবন্ধক নামানো হয়েছিল। কিন্তু ট্রেনটি নগরীর পঁচা পুকুরপাড় এলাকার রেলক্রসিং পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় অটোরিকশাটি লেভেল ক্রসিং থেকে ২০০ গজ দূরত্বে নতুন বাজার মাকরজানি রেলক্রসিং পর্যন্ত টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যায়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। আর ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার দুই যাত্রীর খণ্ড-বিখণ্ড অংশ রেললাইনের দুপাশে পড়ে থাকে। খবর পেয়ে পুলিশ ও জিআরপি ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জানান, ট্রেনটি ধীর গতিতে চলছিল। রেলক্রসিংয়ের দুই পাশের প্রতিবন্ধকের মধ্যে এক পাশের প্রতিবন্ধক নামানো হয়েছিল। ওই সময় রিকশাচালক পার হতে চাইলে রিকশাটি ট্রেনের নিচে পড়ে।

নিহত আবদুর রহমানের ভাই হাবিবুর রহমান জানান, ভাগ্নের বিয়ের কেনাকাটা করতে শেফালিকে নিয়ে শহরে গিয়েছিলেন আবদুর রহমান। জিনিসপত্র নিয়ে বাড়ি ফিরলে রাতেই বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তাদের আর বাড়ি ফেরা হয়নি।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাঈন উদ্দিন জানান, ট্রেন দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে একজন পুরুষ ও একজন নারীর খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করেছে। অটোরিকশায় কয়জন ছিল, সেটি জানা যায়নি। রেল চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

 

 

 

চস/আজহার

Latest Posts

spot_imgspot_img

Don't Miss